গাজীপুরে নকশা বর্হিভূত বহুতল ভবন নির্মাণের অভিযোগ

স্টাফ রিপোর্টার
গাজীপুর মহানগরীর বাসন থানাধীন নাওজোর এলাকায় রাজউকের নকশা অনুমোদন বিহীন ৭ হাজার স্কয়ার ফিট বহুতল বানিজ্যিক ভবন নির্মাণের অভিযোগ পাওয়া গেছে স্থানিয় হাজী মো. মাসুদ হাসানের বিরুদ্ধে। ওই জমি বন্ধক দিয়ে তিনি বাংলাদেশ ইসলামী ব্যাংক, গাজীপুর চান্দনা চৌরাস্তা শাখা থেকে সাড়ে ৭ কোটি টাকা লোনও নিয়েছেন। নিন্মমানের নির্মাণ সামগ্রী ও অপরিকল্পিত ভাবে ভবন নির্মাণে আশপাশের বাড়ি-ঘর ঝুঁকির মধ্যে পরায় রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ বরাবর অভিযোগ করেছে স্থানিয়রা। পরে রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ নির্মাণ কাজ বন্ধ রাখার জন্য নেটিশ দিয়েছে। তারপরও হাজী মাসুদ নির্মাণ কাজ অব্যহত রাখেছেন। পরে রাজউকের বিল্ডিং পরিদর্শক মনিরুজ্জামান সরেজমিনে গেলে তাকে গালাগাল ও ঘটনাস্থল ত্যাগের হুমকি দেয়।
রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (রাজউক) গাজীপুর জোনাল অফিসের বিল্ডিং পরিদর্শক মনিরুজ্জামান জানান, আমরা মাসুদ হাসনকে অনুমোদনবিহীন ভবনের নির্মাণ কাজ বন্ধ রাখার জন্য নোটিশ দিয়েছি। তারা নোটিশ অমান্য করে নির্মাণ কাজ চলমান রাখলে ঘটনাস্থলে যাই এবং ফোনকলেও কাজ বন্ধ রাখতে বলি। কিন্তু তিনি আমাকে অশ্লিলভাষায় গালাগাল ও প্রাণনাশের হুমকি দেয়। বিষয়টি আমি আমার কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছি।
স্থানিয় প্রতিবেশী হাজী মো. মোতালেব ও মো. আলী হোসেন জানান, নিন্মমানের নির্মাণ সামগ্রী দিয়ে বহুতল ভবন নির্মাণ করা হচ্ছে। মাসুদ হাসান রাজউক, থানা পুলিশ কারো কথা মানছেন না। বিল্ডিং এর নির্মাণ কাজ তিনি চালিয়েই যাচ্ছে। প্রতিবেশী আসাদুজ্জামান আশিক জানান, কোন প্রকার প্ল্যান পাস ছাড়া বাংলাদেশ ইসলামী ব্যাংক গাজীপুর চৌরাস্তা শাখা থেকে মোটা দাগে লোন নিয়েছে। পরে নিন্মমানের নির্মাণ সামগ্রী দিয়ে নামে মাত্র ব্যাচ ঢালাই দিয়ে ৭ হাজার স্কয়ার ফিট বহুতল ভবনের নির্মাণ কাজ শুরু করে। বিষয়টি রাজউক কর্তৃপক্ষের নজরে দিলে তারা কাজ বন্ধ রাখার নিদের্শ প্রদান করে। তারপরেও সকল বাধা নিষেদ অমান্য করে মাসুদ উপরে ৪ তলার কাজ চালাচ্ছেন। উল্লেখিত অভিযোগের বিষয়ে মাসুদ হাসান জানান, রাজউক নকশা প্ল্যান দেয় না, তাই প্ল্যানের জন্য চেষ্টাও করি নাই। মেশিনপত্রসহ বিভিন্ন প্রকল্পে ইসলামী ব্যাংক আমাকে লোন দিয়েছে। আমার কাছে অনেকে অনেক সুবিধার চেয়েছে, দিতে পারি নাই বলে তারা আমার সাথে শক্রুতা করছে।
বাংলাদেশ ইসলামী ব্যাংক, গাজীপুর চৌরাস্তা শাখার ব্যবস্থাপক মো. আনোয়ার হোসেন জানান, প্ল্যান না থাকলে বিল্ডিং এর জন্য লোন দেয়া হয় না। মাসুদ হাসানের জমি বন্ধক নিয়ে লোন দেয়া হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *