গ্রেপ্তার চার আসামীর স্বীকারোক্তি মাদকের পাওনা টাকা আদায়ে পরিকল্পিতভাবে আপনকে খুন

স্টাফ রিপোর্টার :
মাদকের দ্বন্দ্বের জের ধরেই গাজীপুর মহানগরের টঙ্গীর পশ্চিম থানার সাতাইশ এলাকায় বাসা থেকে ডেকে নিয়ে নৃসংশভাবে হত্যা করে মো. শামীম ওরফে আপনকে (২৮)। এই হত্যার সঙ্গে জড়িত চারজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গ্রেপ্তারকৃতরা হল, হত্যার মুল আসামী মো. জব্বার ওরফে জয় (১৯), মো. সুমন ইসলাম (৩০), আরমান শেখ (১৯), আল-আমিন ওরফে শামীম (১৯)।
গত শুক্রবার রাতে টঙ্গীর বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেপ্তারকৃতরা মাদকের পাওনা টাকার জন্য আপনকে পরিকল্পিতভাবে ছুরিকাঘাতে হত্যা করেছে মর্মে আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। গাজীপুর মেট্রোপলিটন টঙ্গী পশ্চিম থানা সূত্র জানায়, হত্যাকা-ের পরপরই জিএমপির উপ-কমিশনার (অপরাধ দক্ষিণ) ইলতুৎ মিশ, অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (অপরাধ দক্ষিণ) মো. শাহদাৎ হোসেন ও পশ্চিম থানার ওসি মো. এমদাদ হোসেনের নেতৃত্বে অভিযান পরিচালনা করেন। শুক্রবার রাতেই বিভিন্ন এলাকা থেকে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়।
ঈুলিশের উপ-কমিশনার ইলতুৎ মিশ জানান, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে পুলিশের কাছে গ্রেপ্তারকৃতরা স্বীকার করেছে, আর্থিক লেনদেনের কারনে আপনকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়। গ্রেপ্তারকৃতরা মাদক ব্যবসায়ী ও মাদক সেবনকারী। এর সঙ্গে আরও যারা জড়িত রয়েছে তাদেরকেও গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

উল্লেখ্য, গত শুক্রবার দুপুরে প্রকাশ্য দিবালোকে মো. শামীম ওরফে আপন (৩০) নামে এক যুবক খুন হন। নিহতের স্ত্রী লাকি আক্তার জানান, আমার স্বামী কিছু দিন মাদক সেবন করেছে। তবে এখন করে না। পুলিশের সোর্স ও এলাকার চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী সুমন আমার স্বামীকে পুলিশে ধরিয়ে দেয়ার ভয় দেখিয়ে টাকা চাইতো। গত সপ্তাহে পুলিশ নিয়ে আমাদের বাসায় আসে সুমন। এসময় আমার স্বামীর সঙ্গে সুমনের কথা কাটাকাটি হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *