পঞ্চগড়ে চিকিৎসার নামে প্রতারণার দায়ে জরিমানা

পঞ্চগড়ে চিকিৎসাসেবার নামে প্রতারণা করার অভিযোগে লিজিটপ্লাস অ্যাফিলিয়েট লিমিটেড নামের একটি প্রতিষ্ঠানকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

আজ বুধবার বেলা সাড়ে তিনটায় পঞ্চগড় পৌরসভার কায়েতপাড়া এলাকায় ওই প্রতিষ্ঠানে জেলা ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক পরেশ চন্দ্র বর্মণ অভিযান চালিয়ে এই জরিমানা করেন।

এ সময় জেলা স্বাস্থ্য বিভাগের পক্ষে পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালের চিকিৎসা কর্মকর্তা মো. তোফায়েল আহমেদ উপস্থিত ছিলেন।
জেলা ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর সূত্রে জানা যায়, শহরের কায়েতপাড়া এলাকায় প্রায় দুই বছর আগে লিজিটপ্লাস অ্যাফিলিয়েট লিমিটেড নামক একটি ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান খোলেন আবু বক্কর সিদ্দিক নামের এক ব্যক্তি। সেখানে তিনি রবিউল ইসলাম নামের একজন ডিপ্লোমাধারী ইউনানি হেকিমের মাধ্যমে সব ধরনের রোগের চিকিৎসাসেবা প্রদান ও ওষুধ বিক্রি করছিলেন। কয়েকজন দালালের মাধ্যমে প্রচার চালিয়ে (বিজ্ঞাপন) রোগীদের বুঝিয়ে সেখানে নিয়ে আসতেন। গত বছরের অক্টোবর মাস থেকে ‘রিজনস ম্যাগনেটিক অ্যানালাইজার’ নামক একটি ইলেকট্রনিক ডিভাইস দিয়ে রোগ নির্ণয় শুরু করেন। রোগীদের বয়স, উচ্চতা ও ওজন জেনে যন্ত্রের ওপর রোগীদের হাত রেখে রোগ নির্ণয় করে তাঁদের কাছে বিভিন্ন প্রকার ইউনানি ওষুধ বিক্রি করছিলেন। চিকিৎসাবিজ্ঞানে এ ধরনে ডিভাইস দিয়ে রোগ নির্ণয়ের কোনো ভিত্তি নেই। এর মাধ্যমে চিকিৎসাসেবা নিতে আসা রোগীরা প্রতারণার শিকার হচ্ছিলেন। চিকিৎসাসেবা নিয়ে উপকার না পেয়ে ভুক্তভোগীদের অভিযোগের ভিত্তিতে সেখানে অভিযান চালানো হয়। প্রতারণার প্রমাণ পাওয়া যাওয়ায় ওই প্রতিষ্ঠানকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। এ সময় তাদের রোগনির্ণয়ের যন্ত্রপাতি জব্দ করা হয়।

পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালের চিকিৎসা কর্মকর্তা মো. তোফায়েল আহমেদ বলেন, রবিউল ইসলাম নামের ওই হেকিম একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠান থেকে ডিপ্লোমা করার কাগজপত্র দেখাতে পারলেও চিকিৎসাসংক্রান্ত কোনো প্রশ্নেরই সদুত্তর দিতে পারেননি। তিনি যে প্রক্রিয়ায় রোগ নির্ণয় করছিলেন, চিকিৎসাবিজ্ঞানে তার ভিত্তি নেই।

জেলা ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক পরেশ চন্দ্র বর্মণ বলেন, মূলত ওই প্রতিষ্ঠানটির দালাল চক্রের মাধ্যমে প্রচার চালিয়ে রোগী ধরে আনা এবং তাদের রোগনির্ণয় পদ্ধতির মাধ্যমে রোগীদের সঙ্গে প্রতারণা করে আসছিল। তাদের কাছ থেকে জব্দ করা রোগনির্ণয়ের যন্ত্রপাতি জেলা স্বাস্থ্য বিভাগে জমা দেওয়া হবে বলে তিনি জানান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *